Ticker

6/recent/ticker-posts

anWriter free: অ্যানড্রয়েড ফোনের সেরা কোড রাইটার অ্যাপ

প্রোগ্রামিং এখন সুধু কম্পিউটারেই সীমাবদ্ধ নেই। আমাদের হাতে থাকা স্মার্টফোন টি দিয়েও এখন প্রোগ্রামিং করা যায়।

আমার এই আর্টিকেলে আপনারা জানতে পারবেন প্রোগ্রামিং কোড লেখার জন্য অ্যান্ড্রয়েড ফোনের বেস্ট কোড রাইটার অ্যাপ এর সম্পর্কে।

তো, আপনি যদি স্মার্টফোন দিয়ে প্রোগ্রামিং কিংবা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করেন তবে এই আর্টিকেল টি আপনার সাহায্য করবেই করবে। ইনশাল্লাহ।

সাধারণত এই অ্যাপটি বিশেষ ভাবে ওয়েব প্রোগ্রামিং কে বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকে। কারন সোবাইলে ওয়েব প্রোগ্রামিং তথা HTML, CSS, JavaScript এই ল্যাংগুয়েজ গুলো রান করতে কোনো শক্তিশালী কম্পাইলার এর প্রয়োজন হয় না।

আর বাকি যেসব প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ(PHP, C/C++, Python ইত্যাদি) গুলো আছে এগুলো চালাতে কম্পাইলার কিংবা সার্ভার এর দরকার হয়। এসব অ্যান্ড্রয়েড দিয়ে রান করাতে অসুবিধা হলেও উক্ত অ্যাপ দিয়ে সাচ্ছন্দে লিখতে পারবেন।

যে অ্যাপ সম্পর্কে লিখব তার কিছু বেসিক তথ্য গুলো না জানলেই নয়। অ্যাপ টির নাম anWriter Free । এর সাইজ 1.6 মেগাবাইট। প্লেস্টোরে এ পর্যন্ত ৫ লক্ষ বার ডাউনলোড হয়েছে। প্লে স্টোরে এর দুটি ভার্সন আছে, একটি ফ্রি আর একটি পেইড।

এখন আসুন অ্যাপটি কি কি কারনে আমার কাছে বেস্ট মনে হয় সেটা জেনে নেই। 

  • অ্যাপ এর ইউজার ইন্টারফেস অনেক সহজ। অ্যাপটির অ্যাকশন বারে আছে মেনু, প্লাস, ফোল্ডার, সেভ, আন্ডু এবং মোর অপসন। যেগুলো হাতের কাছে থাকাটাই বেশি  গুরুত্বপূর্ণ।
    • প্লাস এ ক্লিক করে একটি নতুন ইমটি ফাইল ওপেন হবে। যেটা সাধারনত HTML এক্সটেনশনে থাকে। 
    • ফোল্ডার এ ক্লিক করে ফোন স্টোরেজ এর ফোল্ডার গুলো ওপেন হবে। যেখান থেকে কোন সেভ করা ফাইল ওপেন করা যাবে।  
    • সেভ এ ক্লিক করে আপনার লেখা কোড গুলো সেভ করে নিতে পারবেন। 
    • যদি কোনো কোড ভুল করে কেটে যায় তবে আন্ডু থেকে পূর্বাবস্থায় ফিরে আনতে কাজে আসবে। 
  • উপরে বামদিকে যে মেনু বাটন টি আছে সেখানে ক্লিক করে যেসব ফাইলে আপনি কোড লিখতেছেন সেগুলো দেখতে পাবেন। 
  • সেখানে আরো একটি বিষয় লক্ষ্যনীয় যে যেসব ফাইল সেইভ করা হয়নি সেগুলোর পাসে একটি স্টার চিহ্ন দেখতে পাওয়া যায়। যেমন টা কম্পিউটারে কোড লেখার সময় দেখা যায়। 
  • উপর নিচে তিন ফোটা ওয়ালা বাটন (যেটা More Option নামে পরিচিত) থেকে আরো অনেক অপসন পাবেন। যেগুলোর সম্পর্কে নিচে বলা হলো। 
    • Search: কোড এর কোনো অংশ খুজে পেতে সার্চ অপসন টি ব্যবহার করতে হবে। এখান থেকে আপনি চাইলে কোড এর কোনো লেখা রিপ্লেস করতে পারবেন। 
    • Copy: কোনো কোড কপি করতে পারবেন।
    • Paste: কপি কৃত কোড পেস্ট করতে পারবেন। 
    • Save As: সেভ অ্যাস থেকে যে ফাইলে কোড লিখিতেছেন সেটা আপনার স্টোরেজের আলাদা কোনো যায়গায় অথবা আলাদা কোনো নামে সেভ করতে পারবেন। 
    • Tools: টুলস থেকে কোনো কোড রিড অনলি, কোড ফর্মেটিং, এবং সকল কোড সিলেক্ট করতে পারবেন। 
    • Open In Browser: এই অপসনের মাধ্যমে কোড কে ব্রাউজারে রান করাতে পারবেন। 
    • Ftp.. : সরাসরি ওয়েব সার্ভারের কোড এডিটিং, রাইটিং করতে Ftp ব্যবহার করতে পারবেন। 
    • Settings: এখান থেকে কিছু সেটিংস পাবেন। সেগুলো সম্পর্কে বলা হলো। 
      • Font Size: এখান থেকে ফন্ট সাইজ বাড়াতে পারবেন। ডিফল্ট ভাবে 13dp দেওয়া থাকে। 
      • Default Codepage থেকে টেক্সট charset পরিবর্তন করতে পারবেন। 
      • Line break: এখানে /n , /r/n দুইটি অপসন আছে। 
      • Better Support For East Asian, South Asian And Middle Eastern Script: এই অপসন থেকে উক্ত দেশ গুলোর ভাষা আরো ভালো ভাবে সাপোর্ট করানো যেতে পারে। 
      • Simple Keyboard: এখান থেকে কিবোর্ড অনেকটা সাধারণ মানের হয়ে যাবে। যেমন কিবোর্ডে লিখার সময় যেসব কি ওয়ার্ড সাজেশন আসে সেগুলো আর আসবে না। 
সব শেষে কথা বলবো  এর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ফিচার অটো কোড কমপ্লিট এবং নিচের নিচে থাকা কোড সটকাট নিয়ে। সত্যি কথা বলতে অটো কমপ্লিট ফিচার টি কোডিং করার ক্ষেত্রে অনেক সময় বাঁচিয়ে দেয়। আপনি হয়তো খেয়াল করলে দেখবেন ডেক্সটপ এর জন্য যতগুলো কোড এডিটর আছে সে সব গুলোতেই কোড অটো কমপ্লিট ও কোড সাজেশন ফিচার টি আছে।

anWriter অ্যাপে বিভিন্ন ল্যাংগুয়েজ এর জন্য  আলাদা আলাদা সাজেশন আছে। যখন আপনি কোন HTML কোড লিখবেন তখন A থেকে z পর্যন্ত সব গুলো  Tag আপনি পেয়ে যাবেন। শুধুই কি Tag? সেখানে সমস্ত  অ্যাট্রিবিউট ও পাবেন।
আপনি যদি অ্যানড্রয়েড ফোনে এই ফিচার টির সুবিধা নিতে চান তবে তো এই অ্যাপ টি চালাতেই হবে।

তবে, অ্যাপ টির কোড লাইব্রেরি অনেক আগের(প্রায় ১ বছরের ও আগের)। এজন্য কিছু কিছু নতুন কোড যেমন Css Flex, Css3 Border .etc এসবের ভ্যালু গুলোর জন্য কোন  সাজেশন আশে না। আবার কিছু কিছু Css প্রোপার্টি(Css Grid)  এর কোনো সাজেশন ই আসে না। ভ্যালু তো দুরের কথা।
এবং আরেক টি বিষয় হচ্ছে এর প্রিমিয়াম ভার্সন। সাধারণত ফ্রি ভার্সনে কিছু ফিচার নেই। তবে সেগুলো যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে একেবারে লাগবেই এমন টা নয়।

আরো পড়ুন

অ্যাপ টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন(প্লে স্টোর) । আশা করি এই আর্টিকেল থেকে নতুন কিছু পেয়েছেন। যদি পেয়ে থাকেন তবে অবশ্যই একটি কমেন্ট করবেন।
ন্যানোব্লগ ওয়েবসাইট কে সাপোর্ট করুন, বিদায় নিচ্ছি, আল্লাহ হাফেজ।

Post a Comment

0 Comments